গরমে চুলের যত্ন নেয়ার জন্য কী কী করা প্রয়োজন?

haircare 1

বাইরে বের হলেই কড়া রোদে পুড়ে যায় ত্বক। বাড়ি ফিরে সেই ত্বকের যত্ন নিতেই সবাই ব্যস্ত হয়ে পড়ি। অথচ রোদে বের হয়ে চুলেরও যে বেহাল দশা সেই খেয়াল কয়জন করি? ভাবি, বাসায় যেয়ে জাস্ট শ্যাম্পু করে নিলেই চুল ভালো থাকবে। আসলেই কি তাই? এই গরমে যেখানে ত্বক ড্যামেজ হয়ে যাচ্ছে, সেখানে জাস্ট শ্যাম্পুতেই চুল ভালো থাকবে এটা কিন্তু ভুল ধারণা। ত্বকের পাশাপাশি স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পাওয়ার জন্য চুলেরও সমানভাবেই যত্ন নিতে হবে। কিন্তু কীভাবে কী করলে সুন্দর চুল পাওয়া সম্ভব? গরমে চুলের যত্ন কীভাবে নিবেন সে বিষয়েই আজ আপনাদের জানাবো বিস্তারিত।

গরমে চুলের যত্ন নেয়ার নিয়ম   

গরমকালে প্রচণ্ড তাপ, সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি, বাতাসের সাথে মিশে থাকা ধুলাবালির কারণে চুল ধীরে ধীরে ড্যামেজ হতে থাকে। চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়া, ভেঙে যাওয়া, আনম্যানেজেবল হয়ে যাওয়ার মতো বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে থাকে। এর সমাধান শুধু চুল কেটে ছোট করে ফেলা নয়। আবহাওয়ার সাথে টিকে থাকতে হলে যত্ন নেয়াটাও শিখতে হবে। কীভাবে গরমে চুলের যত্ন নেয়ার নিয়ম মেনে চলবেন চলুন জেনে নেয়া যাক-

১) জট ছাড়িয়ে নিন

বাতাসের কারণে বা ঘেমে যাওয়ার পর চুল শুকালে অল্প সময়েই চুলে জট লেগে যেতে পারে। আর এই জট গোসলের পরেও সহজে ছাড়তে চায় না। চুলে পানি লাগানোর আগে তাই চুলের জট ছাড়িয়ে নেয়া জরুরি। এতে হেয়ার ব্রেকেজের সম্ভাবনা কমবে। চুলের স্থায়ীত্ব বাড়বে। এজন্য চিরুনি দিয়ে আগে ভালোভাবে চুল আঁচড়ে নিন। চুলের যত্নে কাঠের চিরুনি ব্যবহার করা সবচেয়ে সেইফ।

গরমে চুলের যত্ন

২) শ্যাম্পু করুন

হেয়ার কেয়ার রুটিনে অবশ্যই যে প্রোডাক্টটি রাখতে হবে সেটি হচ্ছে শ্যাম্পু। গরমে চুল দ্রুত শুষ্ক হয়ে যায়। আর এ কারণে চুলেও দেখা দিতে পারে নানা সমস্যা। তাই চুলের কনসার্ন বুঝে সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।

৩) কন্ডিশনার অ্যাপ্লাই করুন

চুলে নারিশমেন্ট প্রোভাইড করে ম্যানেজেবল রাখতে হেল্প করে কন্ডিশনার। শ্যাম্পু করার পর চুলের লেন্থ অনুযায়ী কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন চুলে। দুই মিনিট পর চুল ভালোভাবে ধুয়ে নিন। কন্ডিশনার হেয়ার শ্যাফটে ময়েশ্চার ধরে রাখে, ফ্রিজিনেস কমায় এবং চুলের আগা ফাটা রোধ করে।

৪) হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাই করুন

সপ্তাহে অন্তত একবার চুলে হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাই করুন। এতে চুলের গোড়া ও লেন্থে পুষ্টি পৌঁছাবে এবং চুল হবে সফট ও স্মুথ। চুলের নারিশমেন্ট লক রাখার জন্য সামার হেয়ার কেয়ার রুটিনে ডিপ কন্ডিশনিং হেয়ার মাস্ক অ্যাপ্লাই করা মাস্ট।

৫) হেয়ার সিরাম ব্যবহার করুন

চুলের ফ্রিজিনেস দূর করতে এবং আগা ফাটা রোধ করতে হেয়ার সিরামের জুড়ি নেই। অল্প পরিমাণই চুলে শাইন নিয়ে আসে দ্রুত। আর এই গরমে হেয়ার সিরাম চুলে এক ধরনের ব্যারিয়ার ক্রিয়েট করে যা ইউভি রে ও হিট থেকে চুলকে সুরক্ষিত রাখে। হেয়ার কেয়ার রুটিনে এই প্রোডাক্টটিও তাই অ্যাড করা জরুরি।

গরমে চুলের যত্ন নিতে হেয়ার সিরাম

৬) তেল লাগান

চুল কি খুব বেশি ড্রাই আর ডিহাইড্রেটেড লাগছে? তাহলে হেয়ার অয়েল ম্যাসাজ করুন। এই ম্যাসাজ স্ক্যাল্পের ব্লাড সার্কুলেশন বাড়ায় এবং চুলের গোড়ায় পৌঁছে দেয় প্রয়োজনীয় পুষ্টি। এতে চুলের গ্রোথ বাড়ে। সেই সাথে তেলের ব্যবহারে চুলের প্রোটেক্টিভ লেয়ার ক্রিয়েট হয় যার কারণে এক্সার্টার্নাল ড্যামেজ হয় না।

চুলের যত্নে আরও কিছু টিপস

গরমে চুলের যত্ন নেয়ার জন্য যেমন নিয়ম মেনে চলতে হবে, তেমনই আরও কিছু টিপসও মনে রাখতে হবে।

১) অতিরিক্ত শ্যাম্পু না করা

ঘামের কারণে স্ক্যাল্প যদি অতিরিক্ত গ্রিজি বা অয়েলি হয়ে যায়, তাহলে প্রতিদিনই শ্যাম্পু করা থেকে বিরত থাকুন। বারবার শ্যাম্পু করলে স্ক্যাল্পের ন্যাচারাল অয়েল কমে যেতে পারে। আর এতে চুল হয়ে যেতে পারে ড্রাই। তাই সপ্তাহে ২/৩ বার শ্যাম্পু করুন। এতে প্রোডাক্ট বিল্ড আপ হলে বা এক্সেস অয়েল থাকলে রিমুভ হয়ে যাবে।

২) স্টাইলিং প্রোডাক্ট কম ব্যবহার করা

গরমে চুল ভালো রাখার আরও একটি উপায় হচ্ছে স্টাইলিং টুলস বা প্রোডাক্টস যতটা সম্ভব কম ব্যবহার করা। বাইরের তাপের কারণে চুল ড্যামেজ হওয়ার চান্স এমনিতেই অনেক বেশি, আরও হিট ও কেমিক্যাল যুক্ত করলে চুলের অবস্থা খারাপ হবেই। ব্রেইড বা হেয়ার ব্যান্ড দিয়েই ন্যাচারাল স্টাইল করার চেষ্টা করুন এ সময়।

৩) হাইড্রেশন ধরে রাখা

কন্ডিশনার ও সিরামের ব্যবহারে চুল হাইড্রেটেড থাকে এটা ঠিক। তবে দিনভর হাইড্রেশন ধরে রাখার জন্য পানি, অ্যালোভেরা জেল ও কোকোনাট অয়েল সমৃদ্ধ একটি স্প্রে ব্যবহার করতে পারেন। চুল আনম্যানেজেবল হয়ে গেলে স্প্রেটি ব্যবহার করুন। অল্প সময়ের মধ্যেই বেনিফিট দেখতে পারবেন।

হেয়ার স্প্রে

৪) চুল ঢেকে বাইরে যাওয়া

চুল ড্যামেজ হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি। তাই বাইরে যাওয়ার আগে চুল ঢেকে বের হোন। স্কার্ফ বা ক্যাপ পরলে চুল অনেকটাই সুরক্ষিত থাকে এই গরমে। এতে ড্যামেজ হওয়ার আশংকাও কমে যায়।

৫) হেয়ার ট্রিমিং করা

চুলের আগা ফাটা খুব কমন একটি সমস্যা। এই সমস্যা কমাতে মাঝে মাঝে হেয়ার ট্রিম করতে পারেন। এতে চুল ভালো থাকে এবং ম্যানেজ করা সহজ হয়। তাই বলা যায়, হেয়ার ট্রিমিং ছাড়া হেয়ার কেয়ার রুটিন অসমাপ্তই বটে।

৬) গরম তেল ম্যাসাজ

সপ্তাহে এক বা দুইবার অয়েল ম্যাসাজ করার কথা তো বলেছি আগেই। তবে এই তেলটি হালকা গরম হলে ভালো। এতে চুলের গোড়া মজবুত হয় এবং প্রেজেন্টেবল হয়।

৭) স্ট্রেস থেকে দূরে থাকা

গরমে চুলের যত্ন যতভাবেই নেয়া হোক না কেন, যদি স্ট্রেস না কমে তাহলে যত্ন নিয়েও কোনো লাভ নেই। কারণ চুল পড়ার অন্যতম কারণ এটি। তাই যতটা সম্ভব স্ট্রেস থেকে দূরে থাকুন। মেডিটেশন বা এক্সারসাইজ করুন, পজিটিভ সোশ্যাল লাইফ মেইনটেইন করুন এবং যতটা সম্ভব স্ট্রেস ফ্রি লাইফ লিড করুন।

৮) স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া

সবকিছুর পাশাপাশি যে খাবারগুলো খাচ্ছেন সেগুলো স্বাস্থ্যকর কিনা সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখুন। খাবার তালিকায় রাখুন প্রোটিন, আয়রন, ভিটামিন এ ও সি, বায়োটিন সমৃদ্ধ খাবার। সেই সাথে পর্যাপ্ত পানি পান করুন। খাবার যদি হেলদি না হয়, তাহলে চুল পুষ্টি পাবে না আর দেখা দিবে চুলের নানা সমস্যা।

ঘরেই বানিয়ে নিন হেয়ার মাস্ক

গরমে চুলের যত্ন নিতে হেয়ার মাস্ক

চুল ময়েশ্চারাইজ রাখার জন্য ঘরেই বানিয়ে ফেলতে পারেন হেয়ার মাস্ক। আমি একটি হোমমেড হেয়ার মাস্কের কথা জানিয়ে দিচ্ছি আপনাদের।

এই মাস্কটি বানাতে প্রয়োজন হবে-

  • টকদই ১/২ কাপ (চুলের লেন্থ অনুযায়ী পরিমাণ কমবেশি হবে)
  • ক্যাস্টর অয়েল ১ টেবিল চামচ
  • নারিকেল তেল ১ টেবিল চামচ
  • ডিম ১টি

যেভাবে অ্যাপ্লাই করবেন

১) সবগুলো উপাদান ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। ভালোভাবে মিক্স না হলে অ্যাপ্লাই করা যাবে না।

২) এবার মাস্কটি চুলে লাগিয়ে অপেক্ষা করুন ৩০/৩৫ মিনিট।

৩) পানি দিয়ে ভালোভাবে ওয়াশ করে নিয়ে শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন।

টক দই ও ডিমে আছে প্রোটিন, যা চুল মজবুত রাখে এবং ভেঙে যাওয়া রোধ করে। ক্যাস্টর অয়েল নারিশমেন্ট প্রোভাইড করে, সেই সাথে ময়েশ্চার লক করে চুলকে রাখে হেলদি। সপ্তাহে অন্তত ১ দিন এই মাস্কটি ব্যবহার করলে চুল থাকবে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

গরমে চুলের যত্ন নিতে কী কী করতে পারেন সে সম্পর্কে জানিয়ে দিলাম বেশ কিছু তথ্য। আশা করি এ নিয়ে আপনাদের আর কোনো কনফিউশন নেই। তাহলে এই গরমে চুল ভালো রাখা নিয়ে আর কোনো চিন্তা নেই নিশ্চয়ই? হেয়ার কেয়ার সহ স্কিনকেয়ার, মেকআপের বিভিন্ন প্রোডাক্টস পেয়ে যাবেন চারদিকে তে। চারদিকে’র ওয়েবসাইট ও অ্যাপে অর্ডার করলে ঘরে বসেই প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে যাবেন। চাইলে ভিজিট করতে পারেন তাদের আউটলেটও।

ছবি – সাটারস্টক

1 I like it
0 I don't like it